Difference between revisions of "আল্লাহ্‌তায়ালার র্পূণতা"

From Sunnipedia
Jump to: navigation, search
 
Line 1: Line 1:
{{সূচী (আল্লাহ্‌ পাক সম্পর্কিত আক্বীদা)}}
+
{{আল্লাহ্‌ 2|আল্লাহ্‌ পাক সম্পর্কিত আক্বীদা}}
<!--<categorytree mode=all style="float:right; clear:right; margin-left:1ex; border:1px solid gray; padding:0.7ex; background-color:#ffffe4; width:40%">আল্লাহ্‌ পাক সম্পর্কিত আক্বীদা</categorytree>-->
+
 
আল্লাহ্তায়ালা সকল রকম ক্ষতি, বিনষ্টি ও নতুনত্বের কালিমা থেকে মুক্ত ও পবিত্র। তিনি শরীরধারী নন। স্থান এবং কালসম্ভূতও নন। সকল পূর্ণতা তাঁর মধ্যেই বিদ্যমান। বরং বলা যায় পূর্ণতা তিনিই। সৃষ্টি তার নিজস্ব ধরনের পূর্ণতা তাঁর অনুগ্রহেই পায়। তাঁর আটটি পূর্ণগুণ এমন যে, ওই গুণগুলি তাঁর মধ্যে অতিরিক্ত অস্তিত্ব অনুযায়ী অস্তিত্বশীল। ওই গুণাবলী হচ্ছে <br>১. হায়াত (জীবন) <br>২. এলেম (জ্ঞান) <br>৩. কুদরত (ক্ষমতা) <br>৪. এরাদা (ইচ্ছা) <br>৫. সামা (শ্রবণ) <br>৬. বাসার(দর্শন) <br>৭. কালাম (বাক্য) <br>৮. তাকবীন (সৃজন)। <br>এই গুণসমূহ বাস্তব। কাল্পনিক বা ধারণাসম্ভূত নয়। এই গুণ অষ্টক প্রকৃত অর্থেই আল্লাহ্তায়ালার জাতের সঙ্গে অতিরিক্ত অস্তিত্ব হিসাবে বর্তমান। এ ব্যাপারে মোতাজিলা দার্শনিকেরা এবং অজুদিয়া সুফীরা মনে করেন, ঐ গুণ অষ্টকের অস্তিত্ব রয়েছে শুধু জ্ঞানে এবং ধারণায়। বাস্তবে জাতের সঙ্গে এক বা একাকার। কিন্তু উপরোক্ত গুণ অষ্টকের বাস্তব অস্তিত্বের স্বীকার না করা পর্যন্ত বিশ্বাসী হওয়ার উপায় নেই। বরং এরকম যারা করবে, তারা আল্লাহ্তায়ালার সিফাতের প্রতি অবিশ্বাসী বলে বিবেচিত হবে।<ref>ইসলামী বিশ্বাস (লেখকঃ মুহাম্মাদ মামুনুর রশীদ)</ref>
 
আল্লাহ্তায়ালা সকল রকম ক্ষতি, বিনষ্টি ও নতুনত্বের কালিমা থেকে মুক্ত ও পবিত্র। তিনি শরীরধারী নন। স্থান এবং কালসম্ভূতও নন। সকল পূর্ণতা তাঁর মধ্যেই বিদ্যমান। বরং বলা যায় পূর্ণতা তিনিই। সৃষ্টি তার নিজস্ব ধরনের পূর্ণতা তাঁর অনুগ্রহেই পায়। তাঁর আটটি পূর্ণগুণ এমন যে, ওই গুণগুলি তাঁর মধ্যে অতিরিক্ত অস্তিত্ব অনুযায়ী অস্তিত্বশীল। ওই গুণাবলী হচ্ছে <br>১. হায়াত (জীবন) <br>২. এলেম (জ্ঞান) <br>৩. কুদরত (ক্ষমতা) <br>৪. এরাদা (ইচ্ছা) <br>৫. সামা (শ্রবণ) <br>৬. বাসার(দর্শন) <br>৭. কালাম (বাক্য) <br>৮. তাকবীন (সৃজন)। <br>এই গুণসমূহ বাস্তব। কাল্পনিক বা ধারণাসম্ভূত নয়। এই গুণ অষ্টক প্রকৃত অর্থেই আল্লাহ্তায়ালার জাতের সঙ্গে অতিরিক্ত অস্তিত্ব হিসাবে বর্তমান। এ ব্যাপারে মোতাজিলা দার্শনিকেরা এবং অজুদিয়া সুফীরা মনে করেন, ঐ গুণ অষ্টকের অস্তিত্ব রয়েছে শুধু জ্ঞানে এবং ধারণায়। বাস্তবে জাতের সঙ্গে এক বা একাকার। কিন্তু উপরোক্ত গুণ অষ্টকের বাস্তব অস্তিত্বের স্বীকার না করা পর্যন্ত বিশ্বাসী হওয়ার উপায় নেই। বরং এরকম যারা করবে, তারা আল্লাহ্তায়ালার সিফাতের প্রতি অবিশ্বাসী বলে বিবেচিত হবে।<ref>ইসলামী বিশ্বাস (লেখকঃ মুহাম্মাদ মামুনুর রশীদ)</ref>
 
==তথ্যসূত্র==
 
==তথ্যসূত্র==
 
<references/>
 
<references/>
 
[[Category:আল্লাহ্‌_পাক_সম্পর্কিত_আক্বীদা]]
 
[[Category:আল্লাহ্‌_পাক_সম্পর্কিত_আক্বীদা]]

Latest revision as of 19:33, 16 November 2015

আল্লাহ্তায়ালা সকল রকম ক্ষতি, বিনষ্টি ও নতুনত্বের কালিমা থেকে মুক্ত ও পবিত্র। তিনি শরীরধারী নন। স্থান এবং কালসম্ভূতও নন। সকল পূর্ণতা তাঁর মধ্যেই বিদ্যমান। বরং বলা যায় পূর্ণতা তিনিই। সৃষ্টি তার নিজস্ব ধরনের পূর্ণতা তাঁর অনুগ্রহেই পায়। তাঁর আটটি পূর্ণগুণ এমন যে, ওই গুণগুলি তাঁর মধ্যে অতিরিক্ত অস্তিত্ব অনুযায়ী অস্তিত্বশীল। ওই গুণাবলী হচ্ছে
১. হায়াত (জীবন)
২. এলেম (জ্ঞান)
৩. কুদরত (ক্ষমতা)
৪. এরাদা (ইচ্ছা)
৫. সামা (শ্রবণ)
৬. বাসার(দর্শন)
৭. কালাম (বাক্য)
৮. তাকবীন (সৃজন)।
এই গুণসমূহ বাস্তব। কাল্পনিক বা ধারণাসম্ভূত নয়। এই গুণ অষ্টক প্রকৃত অর্থেই আল্লাহ্তায়ালার জাতের সঙ্গে অতিরিক্ত অস্তিত্ব হিসাবে বর্তমান। এ ব্যাপারে মোতাজিলা দার্শনিকেরা এবং অজুদিয়া সুফীরা মনে করেন, ঐ গুণ অষ্টকের অস্তিত্ব রয়েছে শুধু জ্ঞানে এবং ধারণায়। বাস্তবে জাতের সঙ্গে এক বা একাকার। কিন্তু উপরোক্ত গুণ অষ্টকের বাস্তব অস্তিত্বের স্বীকার না করা পর্যন্ত বিশ্বাসী হওয়ার উপায় নেই। বরং এরকম যারা করবে, তারা আল্লাহ্তায়ালার সিফাতের প্রতি অবিশ্বাসী বলে বিবেচিত হবে।[1]

তথ্যসূত্র

  1. ইসলামী বিশ্বাস (লেখকঃ মুহাম্মাদ মামুনুর রশীদ)