Difference between revisions of "নামাজের সপ্তম অবস্থা"

From Sunnipedia
Jump to: navigation, search
(Created page with "{{নামাজ 8|নামাজের অবস্থা সমূহ}} {{নামাজ 3|জরুরী মাস'আলা}} {{নামাজ 5|নামাজ - অ...")
 
 
Line 6: Line 6:
 
তুমি এমনভাবে ইবাদাত কর, যেন তুমি আল্লাহকে দেখছ।}}
 
তুমি এমনভাবে ইবাদাত কর, যেন তুমি আল্লাহকে দেখছ।}}
 
{{Quotation|
 
{{Quotation|
হযরত আবু হুরাইরা রাদিআল্লাহু আনহু বলেন, একদিন রছূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি অছাল্লাম  আমাদের নিয়ে জোহরের নামাজ পড়ালেন। যখন ছালাম ফিরালেন তখন শেষ কাতারের একজন মুছল্লিকে ডেকে বললেন, হে অমুক, তুমি কি আল্লাকে ভয় করনা ? তুমি কিভাবে নামাজ পড়ছ তা তো লক্ষ্য করলে না ? নিশ্চয় তোমাদের  কেউ যখন নামাজে দাঁড়ায় সে তখন তার রবের সাথে কথাবার্তা বলার জন্য দাড়িয়ে যায়। সুতরাং সে যেন লক্ষ্য রাখে সে তার রবের সাথে কিভাবে কথাবার্তা বলছে। তোমরা কি মনে কর যে, আমি তোমাদের নামাজের অবস্থা দেখিনা। আল্লাহর কছম ! আমি পিছন দিকেও তেমন দেখি যেমন সামনে দেখি। | আততার গীব ১ম খন্ড ৩৪২ পৃঃ}}
+
হযরত আবু হুরাইরা রাদিআল্লাহু আনহু বলেন, একদিন রছূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি অছাল্লাম  আমাদের নিয়ে জোহরের নামাজ পড়ালেন। যখন ছালাম ফিরালেন তখন শেষ কাতারের একজন মুছল্লিকে ডেকে বললেন, হে অমুক, তুমি কি আল্লাকে ভয় করনা ? তুমি কিভাবে নামাজ পড়ছ তা তো লক্ষ্য করলে না ? নিশ্চয় তোমাদের  কেউ যখন নামাজে দাঁড়ায় সে তখন তার রবের সাথে কথাবার্তা বলার জন্য দাড়িয়ে যায়। সুতরাং সে যেন লক্ষ্য রাখে সে তার রবের সাথে কিভাবে কথাবার্তা বলছে। তোমরা কি মনে কর যে, আমি তোমাদের নামাজের অবস্থা দেখিনা। আল্লাহর কছম ! আমি পিছন দিকেও তেমন দেখি যেমন সামনে দেখি। | আততারগীব ১ম খন্ড ৩৪২ পৃঃ}}
 
{{Quotation|
 
{{Quotation|
 
রছূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি অছাল্লাম  বলেছেন, কোন “আবদ” বান্দা যখন নামাজে দাড়ায় তখন তাঁর সামনে জান্নাত খুলে দেয়া হয় এবং তাঁর ও তাঁর রবের মধ্যেকার পর্দা সমূহ উঠিয়ে নেয়া হয়। হুরগণ তাকে অভ্যর্থনা জানাতে থাকে যতক্ষন সে নামাজের মধ্যে ভূল ভ্রান্তি না করে। |আততারগীব ১ম খন্ড - ২০২ পৃঃ}}
 
রছূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি অছাল্লাম  বলেছেন, কোন “আবদ” বান্দা যখন নামাজে দাড়ায় তখন তাঁর সামনে জান্নাত খুলে দেয়া হয় এবং তাঁর ও তাঁর রবের মধ্যেকার পর্দা সমূহ উঠিয়ে নেয়া হয়। হুরগণ তাকে অভ্যর্থনা জানাতে থাকে যতক্ষন সে নামাজের মধ্যে ভূল ভ্রান্তি না করে। |আততারগীব ১ম খন্ড - ২০২ পৃঃ}}
 +
[[Category:নিবন্ধ]]

Latest revision as of 05:21, 16 August 2015

নামাজের সপ্তম অবস্থা হল ছালাতুল মিরাজ বা আল্লাহর সঙ্গে সাক্ষাতের নামাজ। হাদীছে জিবরিলে তা এভাবে বলা হয়েছে

তুমি এমনভাবে ইবাদাত কর, যেন তুমি আল্লাহকে দেখছ।

হযরত আবু হুরাইরা রাদিআল্লাহু আনহু বলেন, একদিন রছূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি অছাল্লাম আমাদের নিয়ে জোহরের নামাজ পড়ালেন। যখন ছালাম ফিরালেন তখন শেষ কাতারের একজন মুছল্লিকে ডেকে বললেন, হে অমুক, তুমি কি আল্লাকে ভয় করনা ? তুমি কিভাবে নামাজ পড়ছ তা তো লক্ষ্য করলে না ? নিশ্চয় তোমাদের কেউ যখন নামাজে দাঁড়ায় সে তখন তার রবের সাথে কথাবার্তা বলার জন্য দাড়িয়ে যায়। সুতরাং সে যেন লক্ষ্য রাখে সে তার রবের সাথে কিভাবে কথাবার্তা বলছে। তোমরা কি মনে কর যে, আমি তোমাদের নামাজের অবস্থা দেখিনা। আল্লাহর কছম ! আমি পিছন দিকেও তেমন দেখি যেমন সামনে দেখি।

— আততারগীব ১ম খন্ড ৩৪২ পৃঃ

রছূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি অছাল্লাম বলেছেন, কোন “আবদ” বান্দা যখন নামাজে দাড়ায় তখন তাঁর সামনে জান্নাত খুলে দেয়া হয় এবং তাঁর ও তাঁর রবের মধ্যেকার পর্দা সমূহ উঠিয়ে নেয়া হয়। হুরগণ তাকে অভ্যর্থনা জানাতে থাকে যতক্ষন সে নামাজের মধ্যে ভূল ভ্রান্তি না করে।

— আততারগীব ১ম খন্ড - ২০২ পৃঃ