আল্লাহ্ পাক ওদের সামনে-পিছনে অন্তরাল সৃষ্টি করে দিলেন

From Sunnipedia
Jump to: navigation, search
মুহাম্মাদ (সঃ) এর মুজিজা সমূহ 2























  • আল্লাহ্ পাক ওদের সামনে-পিছনে অন্তরাল সৃষ্টি করে দিলেন






হযরত ইব্ন আব্বাস রেওয়ায়েত করেন, বনু মাখজুমের কিছু লোক রাসূলুল্লাহ্ (সা)-কে হত্যা করার পরিকল্পনা করল। তাদের সাথে আবূ জেহেল এবং ওলীদ ইব্ন মুগারী শামিল ছিল। নবী করীম (সা) সালাত আদায় করছিলেন। এ পাপিষ্ঠরা তাঁর কেরআনের আওয়াজ শুনতে পেল এবং ওলীদকে পাঠাল তাঁকে হত্যা করার জন্য ।

যেখানে রাসূলুল্লাহ্ (সা) সালাত আদায় করছিলেন, ওলীদ সে স্থানে গেল। সে তাঁর কেরআত শুনছিল, কিন্তু তাঁকে দেখতে পচ্ছিল না। শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হয়ে ফিরে গেল। সাথীদের ঘটনা জানাল, তারপর তারা সকলে একত্রে সেখানে এলো। তারা কেরআতের আওয়াজ শুনে সেদিকে গেল, তখন আবার ওদের মনে হলো আওয়াজের উৎস উল্টো দিকে। শেষ পর্যন্ত সকালে ব্যর্থ হয়ে ফিরে গেল।

এ প্রসঙ্গে আল্লাহ্ তা’আলা নাযিল করলেনঃ “আমি তাদের সামনে একটি আড়াল সৃষ্টি করেছি, পিছনে আর একটি আড়াল। তাদের চোখের উপর ফেলে দিয়েছি আবরণ। অতএব ওরা দেখতে পায় না।” (সূরা ইয়াসীনঃ ৯)

— বায়হাকী

এ প্রসঙ্গে হযরত ইব্ন আব্বাস (রা)-এর একটি রেওয়ায়েত হযরত আবূ নামীয় হযরত ইকরামার মাধ্যমে বর্ণনা করেন, ইব্ন আব্বাস বলেন, রাসূলুল্লাহ্ (সা) মসজিদে হারামে উচ্চ আওয়াজে কুরআন তিলাওয়াত করতেন। নির্যাতন চালাবার জন্য কুরায়শরা তাঁকে ধরতে উদ্যত হয়। হঠাৎ তাদের হাত তাদের নিজ নিজ ঘাড়ের সাথে আটকে গিয়ে বেড়ীর মত হয়ে যায়। এবং সেই সাথে দৃষ্টিশক্তিও হারিয়ে ফেলে। তারা কিছুই আর দেখতে পেত না।

একদিন ওরা রাসূলুল্লাহ্ (সা)-এর খিদমতে হাজির হয়ে আরজ করল, আমরা আপনাকে কসম দিয়ে বলছি (আপনি আমাদের রক্ষা করুন)। তিনি ওদের জন্য দোয়া করলেন। ওরা আবার তাদের দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেল। এরই প্রেক্ষাপটে সূরা ইয়াসীন নাযিল হয়। নিম্নের আয়তে কারিমায় বিশেষ করে এদের কথাই বলা হয়েছেঃ

আমি ওদের গলায় বেড়ী লাগিয়ে দিয়েটি থুঁতনি পর্যন্ত। তাই ওরা উর্ধ্বমুখী হয়ে আছে। আমি ওদের সামনে একটি আড়াল, পিছনে আর একটি আড়াল করে দিয়েছি। ফলে ওরা আর দেখতে পায় না।

— সূরা ইয়াসীনঃ ৮-৯

তথ্যসূত্র

  • রাসুলুল্লাহ (সঃ) এর জীবনে আল্লাহর কুদরত ও রুহানিয়াত (লেখকঃ মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল গফুর হামিদী, প্রকাশকঃ ইসলামিক ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ)